আমরা লাইভে English বুধবার, আগস্ট ০৪, ২০২১

তুর্কির হাতে কাবুল বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ চায় না তালেবান

Screenshot 2021-06-12 054703

মার্কিন ও ন্যাটো সেনারা আফগানিস্তান থেকে চলে যাওয়ার পর কাবুল বিমানবন্দর পরিচালনা করতে তুরস্ক যে প্রস্তাব দিয়েছে তা প্রত্যাখ্যান করেছে তালেবান। বৃহস্পতিবার সংগঠনটির এক মুখপাত্র সুহেল শাহীন প্রস্তাবটি প্রত্যাখ্যান করে বলেছেন, ২০২০ সালের স্বাক্ষরিত চুক্তি অনুসারে তুরস্কের উচিত নিজেদের সেনাদের আফগানিস্তান থেকে প্রত্যাহার করা। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো বাহিনী চলে যাওয়ার পর কাবুল বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ও পরিচালনার দায়িত্ব নেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে তুরস্ক। এক তুর্কি কর্মকর্তা জানান, তুরস্ক ও যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা এ বিষয়ে সম্ভাব্য সব দিক নিয়ে আলোচনা করেছেন। ওয়াশিংটন কিছু বিষয়ে সম্মত হয়েছে। তার মতে, আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তের পর তুরস্কের পক্ষ থেকে কাবুল বিমানবন্দরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার প্রস্তাব দেওয়া হয়। ন্যাটো ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা চলছে। তবে মার্কিন কর্মকর্তারা বলছেন, তুর্কি সরকার এ জন্য শর্তারোপ করছে, যা আগামী সপ্তাহে দুই দেশের শীর্ষ নেতার বৈঠকে সমাধান হতে পারে।

আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পর বিভিন্ন দেশ নিজেদের দূতাবাসের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। অস্ট্রেলিয়া এরইমধ্যে কাবুলে তাদের দূতাবাস বন্ধ করে দিয়েছে।

রয়টার্সের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে তালেবানের মতামত জানতে চাইলে দোহাভিত্তিক এক মুখপাত্র জানান, ২০ বছর ধরে তুরস্ক ন্যাটোর অংশ ছিল। ফলে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ২০২০ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারিতে স্বাক্ষরিত চুক্তি অনুসারে তুরস্কের সেনাদের আফগানিস্তান ছাড়তে হবে।

মুখপাত্র আরও বলেন, অন্যথায় তুরস্ক একটি ইসলামি দেশ। আফগানিস্তানের ঐতিহাসিক সম্পর্ক রয়েছে তুরস্কের সঙ্গে। ভবিষ্যতে যখন আমরা নতুন ইসলামি সরকার গঠন করবো তখন তাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ ও ভালো সম্পর্কের প্রত্যাশা করি।

এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিক্রিয়া জানাতে পারেনি রয়টার্স। তবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা দফতর পেন্টাগন এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী বৃহস্পতিবার তুরস্কের প্রতিরক্ষামন্ত্রী হুলুসি আকারের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা ও আঞ্চলিক ইস্যু নিয়ে আলোচনা করেছেন।

২০২০ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্পের শাসনামলে যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবানের মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তি অনুসারে ১ মে’র মধ্যে আফগানিস্তান থেকে সব মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করার কথা। কিন্তু বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এপ্রিলে বলেছেন, ৯/১১ হামলার ২০তম বার্ষিকীতে সেনা প্রত্যাহার সম্পন্ন হবে।