আমরা লাইভে English বৃহস্পতিবার, মে ০৬, ২০২১

ভারতের হতাশা বাড়িয়ে দিয়েছে আইএমএফ: প্রবৃদ্ধির আভাসে কাটছাট

ECONOMY-ENG-15-10-2020-1

ইন্টারন্যাশনাল মনিটারি ফান্ড (আইএমএফ) ভারতের সম্ভাব্য অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির সূচককে মঙ্গলবার আরও নামিয়ে এনেছে। করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে দক্ষিণ এশিয়ার এই দেশটির প্রধান উদীয়মান বাজারগুলো এখন সবচেয়ে বড় ধরনের সঙ্কোচনের মুখে পড়েছে। 

ওয়াশিংটন-ভিত্তিক এ দাতা সংস্থা তাদের ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক আউটলুকে বলেছে যে, ২০২১ সালের মার্চে যে অর্থবছর শেষ হবে, সেই অর্থবছরে ভারতের প্রবৃদ্ধি ১০.৩% কম হবে। জুনে যে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিল সংস্থাটি সেখানে তারা ৪.৫% প্রবৃদ্ধি সঙ্কোচনের ইঙ্গিত দিয়েছিল। বিশ্বের বড় বড় অর্থনীতির দেশগুলোর মধ্যে ৫.৮ শতাংশ জিডিপি সঙ্কোচনের বিষয়টি মাত্রার দিক থেকে সবচেয়ে বেশি। 

আইএমএফ তাদের রিপোর্টে বলেছে, উদীয়মান অর্থনীতির গ্রুপের মধ্যে “ভারতের জন্য ভবিষ্যদ্বাণীর বিষয়টি সবচেয়ে বেশি বদলাতে হয়েছে, যেখানে বছরের দ্বিতীয় কোয়ার্টারে জিডিপি ধারণার চেয়ে অনেক বেশি সঙ্কুচিত হয়েছে”।

মার্চের শেষ দিকে ভারত যে লকডাউন জারি করে, সেটার কররণে জুন কোয়ার্টারে এক বছরে আগের তুলনায় অর্থনীতির আকার ২৩.৯% কমে আসে। এ সময়টাতে ব্যবসায় আর কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে ব্যাপক বিপর্যয় নেমে আসে। তখন থেকেই মহামারী নিয়ন্ত্রণে কর্তৃপক্ষ কার্যত ব্যর্থ হয়েছে। করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এখানে ৭ মিলিয়ন ছাড়িয়ে গেছে। আক্রান্তের দিক থেকে ভারতের আগে শুধু যুক্তরাষ্ট্র রয়েছে। 

চীনে এই ভাইরাসের সংক্রমন শুরু হয়েছিল কিন্তু সেখানে এখন এটা নিয়ন্ত্রণে আছে। আইএমএফের ধারণা অনুযায়ী চীনে এ বছর ১.৯% প্রবৃদ্ধি হবে। জুনে তারা ১% প্রবৃদ্ধির ইঙ্গিত দিয়েছিল। সংস্থাটি জানিয়েছে, “চীন যেভাবে প্রবৃদ্ধিতে ফিরে এসেছে, সেটা ধারণার চেয়েও শক্তিশালী”।

চীন ছাড়া উদীয়মান ও উন্নয়নশীল অর্থনীতির দেশগুলোর ক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধির সম্ভাবনার বিষয়টি এখনও অন্ধকারেই রয়ে গেছে বলে আইএমএফ জানিয়েছে। 

সংস্থাটি বলেছে, “এ বছর সবগুলো উদীয়মান বাজার ও উন্নয়নশীল অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলো সঙ্কুচিত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এর মধ্যে এশিয়ার উদীয়মান বাজারও রয়েছে, যেখানে ভারত ও ইন্দোনেশিয়ার মতো উদীয়মান অর্থনীতির দেশগুলো মহামারী নিয়ন্ত্রণে আনতে এখনও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে”।

ভারতের কেন্দ্রিয় ব্যাংক চলতি অর্থবছরে জিডিপি ৯.৫% হ্রাস পাবে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে। তবে আইএমএফের আউটলুকে তাদের অবস্থান আরও নিচে। অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন সোমবার ভোক্তাদের ব্যায় বাড়ানোর জন্য বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছেন। এর আগে ২১ ট্রিলিয়ন রুপির প্যাকেজ ঘোষণা করেও অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে পারেননি তিনি।