আমরা লাইভে English বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২১

ভারত-রাশিয়া একে-৪৭ ২০৩ রাইফেল উৎ‌পাদন চুক্তি চূড়ান্ত

DEFENCE-ENG-04-09-2020-India2

চলতি রাশিয়া সফরে একে-৪৭ ২০৩ রাইফেল উৎপাদন নিয়ে চুক্তি চূড়ান্ত করে ফেললেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রীর আমন্ত্রণে তিন দিনের সফরে তিনি এখন ভ্লাদিমির পুতিনের দেশে রয়েছেন। ভারতে একে-৪৭ ২০৩ রাইফেল তৈরি করার লক্ষ্যে বৃহস্পতিবার চুক্তিটি চূড়ান্ত হয়। রাজনাথ সিংয়ের সফরের অন্যতম উদ্দেশ্যই ছিল এই চুক্তি চূড়ান্ত করা। 

একে-৪৭ ২০৩ রাইফেল হল একে-৪৭ রাইফেলের সর্বশেষ এবং সর্বাধুনিক সংস্করণ। ভারতীয় সেনাদের হাতে ইন্ডিয়ান স্মল আর্মস সিস্টেম (ইনসাস) ৫.৫৬x৪৫ এমএম অ্যাসল্ট রাইফেলের বিকল্প হিসেবে অত্যাধুনিক একে-৪৭ ২০৩ রাইফেল তুলে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

নির্মলা সীতারমন প্রতিরক্ষামন্ত্রী থাকাকালীন রাশিয়ার কালাশনিকভের সঙ্গে একটি চুক্তি হয়েছিল। ওই চুক্তি অনুযায়ী, ভারতীয় সেনাবাহিনীর জন্য ৭৭০,০০০ একে-৪৭ ২০৩ রাইফেল তৈরি করা হবে। দেশের তিন বাহিনীতে ব্যবহৃত ইনসাস রাইফেলের জায়গা করে নেবে এই একে-৪৭ ২০৩ রাইফেল। 

জানা গিয়েছে, এই ৭৭০,০০০ একে-৪৭ ২০৩ রাইফেলের মধ্যে ১০০,০০০ লাখ রাইফেল রাশিয়া থেকে আমদানি করা হবে। বাকি রাইফেল ভারতেই তৈরি হবে। বৃহস্পতিবার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, উভয়পক্ষই এদিনের আলোচনাকে স্বাগত জানিয়েছে। ভারত-রাশিয়া যৌথ ভাবে একে-২০৩ অ্যাসল্ট রাইফেল তৈরি করবে। মেক-ইন-ইন্ডিয়া উদ্যোগের আওতায় তৈরি হবে ভারতের অস্ত্র কারখানায়। 

জানা গিয়েছে, ইন্দো-রাশিয়া রাইফেলস প্রাইভেট লিমিটেডের (আইআরআরপিএল) মাধ্যমে যৌথ উদ্যোগে ভারতে এই রাইফেলগুলো তৈরি হবে। অর্ডানেন্স ফ্যাক্টরি বোর্ড (ওএফবি), রাশিয়ার কালাশনিকভ কনসার্ন ও রোসোবারোনেক্সপোর্ট মিলিত ভাবে এই রাইফেগুলি বানাবে। 

এ ক্ষেত্রে আইআরআরপিএল-এ বড় অংশীদারিত্ব থাকবে অর্ডানেন্স ফ্যাক্টরি বোর্ডের। অংশীদারিত্বের পরিমাণ ৫০.৫ শতাংশ। কালাশনিকভ গ্রুপের অংশীদারিত্বের পরিমাণ ৪২ শতাংশ। বাকি ৭.৫ শতাংশ অংশীদারিত্ব থাকবে রাশিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত রফতানি সংস্থা, রোসোবারোনেক্সপোর্টের হাতে।

এই মুহূর্তে ভারতের দু'ধরনের রাইফেলের প্রয়োজন: এক, এমন আগ্নেয়াস্ত্র যার লক্ষ্য নিখুঁত এবং একই সঙ্গে যার 'রেট অফ ফায়ার'ও বেশি আর দ্বিতীয় শ্রেণির রাইফেল যা অপেক্ষাকৃত হালকা হবে যা নিয়ে পদাতিক বাহিনী সম্মুখ সমরে যেতে পারে।

গত বছর উত্তরপ্রদেশের আমেথির করওয়ারের অস্ত্র কারখানায় কালাশনিকভের ওই রাইফেল তৈরি প্রকল্পের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ৭.৬২×৩৯ এমএম রাশিয়ান অস্ত্র একে-২০৩ রাইফেলই শুধু তৈরি করবে কালাশনিকভ। এক-একটি রাইফেল তৈরিতে খরচ হবে প্রায় ১,১০০ ডলার। প্রযুক্তি হস্তান্তর থেকে সমস্ত খরচই এতে ধরা থাকবে।

শোনা যাচ্ছে, সেনাবাহিনীর কোনও এক মেজর জেনারেলকে কোরওয়ার ওই কারখানার কাজের দেখভালের দায়িত্ব দেওয়া হবে। পুরো প্রকল্পের মূল্য হবে ১২ হাজার কোটি টাকা।

ভারতের সেনাবাহিনী ও পুলিশ বাহিনীর সামরিক উন্নয়নের জন্য তো বটেই, প্রয়োজনে ওই আগ্নেয়াস্ত্র বিদেশেও রফতানি করা হতে পারে। তবে এ ব্যাপারে দু'দেশকে একমত হতে হবে। আমেরিকার কাছ থেকে এক নতুন ধরনের অ্যাসল্ট রাইফেল কিনতে ৬৪৭ কোটি টাকার আর একটি চুক্তি করেছে ভারত। এক বছরের মধ্যে সেগুলো ভারতীয় সেনাবাহিনী পেয়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। 

১৯৯৬ সাল থেকে ভারতীয় সেনাবাহিনী ইনসাস ব্যবহার করে আসছে।