আমরা লাইভে English শনিবার, এপ্রিল ১৭, ২০২১

চীনের জাতীয় ছুটির পর এক সপ্তাহের মধ্যেই ফের দিল্লী-বেইজিং আলোচনা

REPORT-2-ENG-03-10-2020-China (1)

চীনের জাতীয় ছুটি শেষ হওয়ার পর আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে নয়া দিল্লী ও বেইজিংয় পরবর্তী দফা সামরিক আলোচনায় বসতে পারে। ভারতের সরকারি সূত্র এ ইংগিত দিয়েছে। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে কোন তারিখ এখনো নির্ধারণ করা হয়নি।

একটি সূত্র জানায়, পরবর্তী কোর কমান্ডার বৈঠকের তারিখ নির্ধারণ নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। এটা এক সপ্তাহের মধ্যে অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা খুবই বেশি, চীনের জাতীয় ছুটি শেষ হওয়ার পর।

১ অক্টোবর থেকে চীনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে তিন দিনব্যাপী জাতীয় ছুটি শুরু হয়। তবে মূলভূখণ্ডে তা এক সপ্তাহ পর্যন্ত বাড়ানো যেতে পারে। ১৯৪৯ সালের ১ অক্টোবর পিপলস রিপাবলিক অব চায়না প্রতিষ্ঠিত হয়।

প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় (এলএসি) উত্তেজনা কমানো ও সেনাপ্রত্যাহার নিয়ে গত বুধবার দুই দেশের সেনা কমান্ডারদের মধ্যে দীর্ঘ আলোচনা হয়।

সাবেক ডিজিএমও লে. জেনারেল বিনোদ ভাটিয়া এই পত্রিকাকে বলেন, এখন পর্যন্ত আলোচনা থেকে তেমন কিছু পাওয়া না গেলেও আশার বিষয় হলো আলোচনা হওয়াটাই ইতিবাচক অগ্রগতি।

তিনি বলেন, দুই পক্ষই নিজ নিজ অবস্থানে অনড়। ভারত চাইছে স্থিতাবস্থা ফিরিয়ে আনতে। আর চীন চাইছে অগ্রবর্তী অবস্থানে তার মোতায়েন সুসংহত করতে। প্যাংগং সো’র দক্ষিণ তীরে গুরুত্বপূর্ণ পাহাড়চূড়া ভারত দখল করায় চীন চিন্তায় পড়ে গেছে। 

ভাটিয়া বলেন, তুলনামূলক শক্ত অবস্থানে থেকে চীনের সঙ্গে ভারতের কথা বলতে হবে। 

তবে সেনাপ্রত্যাহার প্রক্রিয়া শেষ হতে কয়েক মাস লেগে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ফলে লাদাখে আসন্ন শীতকালে অতিরিক্ত ৪০,০০০ সেনা মোতায়েন রাখার জন্য সেনাবাহিনীকে বিপুল লজিস্টিক প্রস্তুতি নিতে হচ্ছে।

এদিকে সামরিক ও কূটনৈতিক অঙ্গনে আলোচনা হচ্ছে যে আগামী দফার আলোচনায় চীন ১৯৫৯ সালের দাবি করা সীমান্ত রেখা উত্থাপন করতে পারে। যদিও ভারত বলছে, ১৯৫৯ সালের দাবি অনুযায়ী এলএসি নির্ধারণের চীনা দাবি তারা মানে না। 

চলতি মাসের প্রথম দিকে এই পত্রিকার সঙ্গে এক সাক্ষাতকারে চীনা বিশেষজ্ঞ ইউন সান বলেন যে চীন সম্ভবত ১৯৫৯ সালে দাবি করা রেখা অনুযায়ী এলএসি নির্ধারণের দাবি জানাতে পারে। ১৯৫৯ সালের দাবিটি চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় অনুমোদন করেছে। 

ভারতের বিরুদ্ধে প্রটোকল ভঙ্গের অভিযোগ

সরকারের একটি শীর্ষ সূত্র জানায়, ১৪ ঘন্টা স্থায়ী সর্বশেষ দফা সামরিক-কূটনৈতিক বৈঠকে চীন সেপ্টেম্বরে যে অবস্থা রয়েছে তা নিয়ে আলোচনা করতে চাইলেও ভারত এপ্রিল থেকে অচলাবস্থা নিয়ে আলোচনার দাবি করে।

সূত্র বলে, ভারতের বিরুদ্ধে প্রটোকল ভঙ্গ এবং তাদের ভূখণ্ডে প্রবেশ করে প্রায় ৩০টি ফিচার দখলের অভিযোগ করেছে চীন।

সূত্র আরো বলে, চীনের অবস্থান ছিলো যে তারা এলএসি অতিক্রম করেনি বরং ভারত তাদের ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশ করেছে।