আমরা লাইভে English রবিবার, অক্টোবর ১৭, ২০২১

পানশিরের পূর্ণ দখল নেওয়ার দাবি তালেবানের

panjshir-2

পানশিরের পূর্ণ দখল নেওয়ার দাবি করেছে তালেবান। বার্তা সংস্থা এএফপি ও আল জাজিরার প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

তালেবানের প্রধান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ আজ একটি বিবৃতি দিয়েছেন। তাতে তিনি পানশির উপত্যকায় প্রতিরোধযোদ্ধাদের নিয়ন্ত্রণে থাকা শেষ স্থানটুকুও তালেবান দখল করেছে বলে দাবি করেন।

যদিও এ বিষয়ে আমরুলা সালেহ্ বা আহমদ মাসউদের পক্ষ থেকে এখনও কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

এপিও তালেবানের এই দাবির সত্যতা নিরপেক্ষ কোনো সূত্র থেকে যাচাই করতে পারেনি। পানশিরের প্রতিরোধযোদ্ধাদের কাছ থেকেও তাৎক্ষণিকভাবে এ ব্যাপারে কোনো বক্তব্য পায়নি বার্তা সংস্থাটি।

কাবুলের নিয়ন্ত্রণ তালেবানের হাতে চলে যাওয়ার পর পানশিরের স্থানীয় নেতা আহমদ মাসউদের নেতৃত্বে তালেবানবিরোধী প্রতিরোধযুদ্ধ গড়ে তোলা হয়। সেখানে মাসুদের নেতৃত্বাধীন মিলিশিয়াদের সঙ্গে আফগান সামরিক বাহিনীর কমান্ডারদের একাংশ মিলে গঠন করা হয় ন্যাশনাল রেজিস্ট্যান্স ফ্রন্ট (এনআরএফ)।

তালেবান আবার ক্ষমতায় আসার পর দুই পক্ষের মধ্যে সমঝোতা আলোচনা চলছিল। তবে সেই আলোচনায় কোনো সমাধান আসেনি। ফলে তালেবান যুদ্ধের পথ বেছে নেয়। পানশিরের দখল নিতে তালেবান ও এনআরএফের মধ্যে কদিন ধরেই তীব্র লড়াই চলছিল।

তবে রোববারই যুদ্ধবিরতির ডাক দেয় নর্দার্ন অ্যালায়েন্স। তালেবানের সঙ্গে আলোচনায় বসার প্রস্তাব দেয় তারা। তখনই মনে করা হচ্ছিল পানশিরে ক্রমেই দুর্বল হচ্ছে আমরুলা সালেহ্ ও আহমদ মাসউদের প্রতিরোধ বাহিনী। তার পরেই তালেবান দাবি করল, পানশিরের দখল নিয়েছে তারা।

রোববার 'ন্যাশনাল রেজিস্ট্যান্স ফোর্স অব আফগানিস্তান' একটি বিবৃতি জারি করে বলে, 'বর্তমান পরিস্থিতিতে তালেবানের সঙ্গে আলোচনা চালাতে রাজি প্রতিরোধ বাহিনী। আশা করছি তালেবান আমাদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে সমস্যা সমাধানের পথে এগোবে। পানশিরে তালেবান যোদ্ধারা ক্রমাগত আক্রমণ করছেন। ফলে দু'পক্ষেই অনেক প্রাণহানি হয়েছে। প্রতিরোধ বাহিনী যুদ্ধ শেষ করতে চায়। আশা করছি আলোচনার মাধ্যমেই সমস্যার সমাধান হবে।'