আমরা লাইভে English বুধবার, মে ১৯, ২০২১

১৪ এপ্রিল থেকে এক সপ্তাহের সর্বাত্মক লকডাউনের চিন্তা: সেতুমন্ত্রী

obaidul_quader-1_0

করোনার সংক্রমণ মোকাবিলায় আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে সরকার আরও এক সপ্তাহের জন্যে সর্বাত্মক লকডাউনের বিষয়ে সক্রিয় চিন্তা-ভাবনা করছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আজ শুক্রবার নিজ বাসভবনে ব্রিফিংকালে তিনি এ কথা জানান।

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘দেশে করোনা সংক্রমণ ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার। সঙ্গে বাড়ছে জনগণের অবহেলা ও উদাসীনতা। এই অবস্থায় সরকার জনস্বার্থে আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে এক সপ্তাহের জন্যে সর্বাত্মক লকডাউনের বিষয়ে সক্রিয় চিন্তা-ভাবনা করছে।’

‘চলমান এক সপ্তাহের লকডাউনে জনগণের উদাসীন মানসিকতার কোনো পরিবর্তন হয়েছে বলে মনে হয় না’, যোগ করেন তিনি।

আন্দোলন সংগ্রামে ব্যর্থ হয়ে লন্ডনের নেতাকে খুশি করতে ও কর্মীদের রোষানল থেকে বাঁচতে বিএনপি আইসোলেশন থেকে হাঁক-ডাক ছড়াচ্ছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তাদের এসব হুমকি-ধামকি আষাঢ়ের তর্জন-গর্জন সার। রাজনীতিকে তারা জনগণের দ্বারপ্রান্ত থেকে তুলে এনে এখন আবাসিক রূপ দিয়েছে। আওয়ামী লীগের কর্মীরা দলের পক্ষে অসহায় মানুষের পাশে থেকে সহযোগিতা করছে। তৃণমূলে পৌঁছে গেছে সরকারি সহায়তা। আর বিএনপি দরজা-জানালা বন্ধ করে লিপ সার্ভিস দিচ্ছে। করে যাচ্ছে কাল্পনিক অভিযোগ। যখন যে ইস্যু সামনে আসে তা নিয়ে বিএনপি রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের অপচেষ্টা করে। পরাশ্রয়ী আন্দোলন ও গোপন ষড়যন্ত্র করে ক্ষমতায় আরোহনের দিন শেষ হয়ে গেছে।’

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার প্রতি জনগণের আস্থা রয়েছে। সেটাই শেখ হাসিনা সরকারের মূল শক্তি। জনগণ ভালো করেই জানে বিএনপি ক্ষমতায় আসা মানেই দেশ আবারও অন্ধকারে তলিয়ে যাওয়া।’

‘ধর্মের দোহাই দিয়ে ধর্মকে ঢাল বানিয়ে জনগণের সম্পদ বিনষ্টের অপচেষ্টা আর সহ্য করা হবে না। এদেশের মুসলমানরা কোনো অপশক্তি বা ধর্মব্যবসায়ীদের কাছে তাদের ধর্ম-বিশ্বাস ইজারা দেয়নি। কতিপয় স্বার্থান্বেষী ও উচ্চ-বিলাসী লোকের স্বপ্নপূরণে দেশকে অস্থিতিশীল করার যেকোনো অপপ্রয়াস জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সরকার কঠোর হস্তে দমন করবে’, বলেন তিনি।

উন্নয়নশীল দেশগুলোর অভিন্ন প্লাটফর্ম ডি-৮’র আগামী দুই বছরের জন্য সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আওয়ামী লীগ ও জনগণের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এ অর্জন শেখ হাসিনার নেতৃত্বের স্বীকৃতি। এ অর্জন বাংলাদেশের মানুষের অর্জন এবং শেখ হাসিনার সাফল্যের মুকুটে আরও একটি সোনালি পালক যুক্ত হলো।’

উল্লেখ্য, গত ৫ এপ্রিল থেকে সারাদেশে এক সপ্তাহের জন্যে লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। ৬ এপ্রিল জানানো হয়, ঢাকা, চট্টগ্রাম মহানগরসহ গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, কুমিল্লা, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন এলাকার সড়কে ৭ এপ্রিল থেকে সকাল ৬টা-সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত অর্ধেক আসন খালি রেখে গণপরিবহন চলাচল করবে। তবে, দূরপাল্লার গণপরিবহন পরবর্তী নির্দেশনা না আসা পর্যন্ত যথারীতি বন্ধ থাকবে।

গতকাল মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের দেওয়া প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়, স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মানার শর্তে ৯-১৩ এপ্রিল সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত দোকানপাট ও শপিংমল খোলা রাখা যাবে।