আমরা লাইভে English সোমবার, মে ১০, ২০২১

রাশিয়ান মহড়ায় অংশ নেবে ভারত, চীনের সেনারা, যোগ দিতে পারে পাকিস্তানও

DEFENCE-ENG-27-08-2020-Pak

পূর্ব লাদাখে সামরিক সঙ্ঘাতের প্রেক্ষিতে নয়াদিল্লী আর বেইজিংয়ের মধ্যে আলোচনা যেখানে থমকে আছে, সে অবস্থায় আগামী মাসে রাশিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য আন্তর্জাতিক সামরিক মহড়ায় অংশ নিতে যাচ্ছে ভারত আর চীনের সেনারা। 

মে মাসের শুরুর দিকে লাদাখের এলএসি এলাকায় দুই দেশের বাহিনীর মধ্যে উত্তেজনা শুরুর পর এটাই প্রথম বন্ধুত্বপূর্ণ কোন মহড়ায় পরস্পরের মুখোমুখি হচ্ছে দুই দেশের সেনাবাহিনী। 

১৫ থেকে ২৭ সেপ্টেম্বর রাশিয়ার দক্ষিণাঞ্চলে অনুষ্ঠিতব্য কাভকাজ মহড়ায় অংশ নেয়ার জন্য তিন বাহিনীর একটি কনটিনজেন্ট পাঠাবে ভারত। 

চীন তাদের অংশগ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। আবার পাকিস্তানও মহড়ায় তাদের সেনা পাঠাতে চায় বলে জানা গেছে। ভারতীয় কনটিনজেন্টে থাকছে পদাতিক ব্যাটালিয়নের প্রায় ১৮০ জন সেনা, বিমান বাহিনীর ৪০ সদস্য, দুজন নৌবাহিনীর কর্মকর্তা। 

সার্বিকভাবে মোট ১৩,০০০ সেনা মহড়ায় অংশ নেবে। প্রতিরক্ষা বিভাগের সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। 

জানা গেছে, চীন উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নৌ সেনা নিয়ে মহড়ায় অংশ নেবে। ২০১৮ সাল থেকে ক্রমেই বেশি সংখ্যক দেশ এই মহড়ায় অংশ নিচ্ছে। প্রতিরক্ষা বিভাগের সূত্র জানিয়েছে, এর আগে পর্যন্ত মহড়াটি রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর মধ্যে সীমিত ছিল, বা কখনও প্রতিবেশী পূর্ব ইউরোপের দেশগুলোর সাথে মিলে দ্বিপাক্ষিক মহড়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

২০১৮ সালে, ভোস্টোক মহড়ায় চীন আর মঙ্গোলিয়া অংশ নেয়। গত বছরের সেন্তর মহড়ায় ভারত, পাকিস্তান এবং এসসিও’র সবগুলো দেশ অংশ নিয়েছিল। 

২০১৮ সালে এসসিও শান্তি মিশনে অংশ নিয়েছিল ভারত। ২০১৯ সালে প্রথমবারের মতো সেন্তর মহড়ার অংশ হিসেবে প্রথমবারের মতো তারা কৌশলগত কমান্ড ও স্টাফ মহড়ায় অংশ নেয়। 

সূত্র জানিয়েছে, এই মহড়ার উদ্দেশ্য হলো “উত্তর ও ককেসাস অঞ্চলে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের মোকাবেলায় তাৎক্ষণিক প্রশিক্ষণ দেয়া”, এবং মহড়ায় থাকবে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক ও রক্ষণাত্মক উভয় ধরণের অভিযান অন্তর্ভুক্ত থাকবে”।