আমরা লাইভে English রবিবার, জুন ২৬, ২০২২

ভারতের গ্রামে গ্রামে পৌছে গেছে করোনাভাইরাস

india-coronavirus-migrant-buses-gettyimages-1214798589-1
বাড়ি ফেরার জন্য রেলস্টেশনে ভারতে অভিবাসী শ্রমিকদের লাইন

সাউথ এশিয়া ব্রিফ-এ স্বাগত। এ সপ্তাহে থাকছে ভারতের গ্রামে গ্রামে করোনা পৌছে যাওয়া, এক রোহিঙ্গা শরণার্থীকে হত্যা এবং তালেবানের শীর্ষ নেতার গুরুতর অসুস্থ হওয়ার খবর।

আরো আছে চীনের সঙ্গে বিরোধের ভারতের পক্ষ নিলেন মাইক পম্পেও ও দুই এশিয়ান শক্তির মধ্যে এক ডিজিটাল বিরোধ মিমাংসায় মধ্যস্থতা করতে উদ্যোগ গুগলের।

গ্রামীণ ভারতের জন্য হুমকি করোনা 

the-rise-corona-sa-breef

উপরের এই হিসাব ভারতের।

দক্ষিণ এশিয়ায় কেন আরো বেশি করোনা রোগী শনাক্ত হচ্ছে না সেই প্রশ্ন গত দুই মাস ধরে মহামারী বিশেষজ্ঞ ও সাংবাদিকদের। কিন্তু সর্বশেষ উপাত্তই বলে দিচ্ছে এর কারণ। 

৪ জুন ভারতে ৯,০০০ নতুন সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। প্রতি দুই সপ্তাহে ভারতে করোনা রোগী দ্বিগুণ হচ্ছে। এতে শিগগিরই দেশটি বিশ্বে আক্রান্ত সংখ্যা তালিকায় চতুর্থ স্থানে চলে যাবে। তার আগে থাকবে শুধু যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল ও রাশিয়া। পরীক্ষায় ক্রমেই বেশি সংখ্যক আক্রান্ত ধরা পড়ছে। এতে বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে এখনো পিকে পৌছাতে কয়েক সপ্তাহ বা মাস বাকি। তবে ভারতে করোনার আভাস অনেকটাই ধোঁয়াটে। কারণ ১০ লাখে পরীক্ষা করা হচ্ছে মাত্র ৩,০০০ জন। যা যুক্তরাষ্ট্রের তুলনায় বিশ ভাগের এক ভাগ।

গ্রামে গ্রামে প্রাদুর্ভাব? সম্ভবত সবচেয়ে উদ্বেগের খবর হলো ২৪ মার্চ তড়িঘড়ি লকডাউন ঘোষণার পর অভিবাসী শ্রমিকদের নিজ বাড়িঘরে ফেরার চেষ্টা। ১ জুনের পর শুধু বিহারেই ৩,৮৭২ নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে, যাদের ৭১ শতাংশ বাইরে থেকে ফিরে আসা লোকজন। মে মাসের শেষ দিকে সরকার বিশেষ ব্যবস্থায় এসব শ্রমিককে বিভিন্ন রাজ্য থেকে ফিরিয়ে আনে।

ভারতে গ্রামে গ্রামে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কার কারণ হলো ‍দুর্বল স্বাস্থ্য পরিচর্যা ব্যবস্থা। গ্রামে দ্রুত ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়তে শুরু করলে তা দমন করা তো দূরের কথা অনুসরণ করারও কঠিন হবে। 

হাসপাতালগুলো ঠাসা। ভারতের শহরগুলোতে সমস্যার শেষ নেই। হাফপোস্টের অনেক রিপোর্টে বলা হয়েছে যে নয়া দিল্লির জনাকীর্ণ হাসপাতালগুলো থেকে চিকিৎসা না পেয়ে অনেকে ফেরত যাচ্ছেন। হাসপাতালে দিয়ে একজন ডাক্তারের দেখা পেতে পেতে অনেক রোগী মারা যাচ্ছে। এক জন বলেন, আমরা চিকিৎসার জন্য ডাক্তারের অপেক্ষায় বসে থেকে থেকে শেষ পর্যন্ত লাশ দাহ করে একসাথে বাড়ি ফিরেছি। 

লকডাউন খুলে দেয়া। এত কিছুর পরও লকডাউন তুলে নেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারত। অনানুষ্ঠানিক খাতে জড়িতদের উপাত্ত পাওয়া কঠিন। তবে মনে করা হয় কাজ খুঁজে ফিরছে এমন মানুষের সংখ্যা ১০ কোটি। বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের বড় বড় শহরগুলোও স্বাভাবিক জীবনে ফেরার চেষ্টা করছে। মনে হচ্ছে কয়েক মাস বন্ধ রাখার পর এই অঞ্চলের বেশিরভাগ দেশ একই উপসংহারে পৌছেছে: তারা আর অর্থনৈতিক ব্যাথা সইতে পারছে না। এর মানে হলো গ্রীষ্মের শেষ নাগাদ দক্ষিণ এশিয়া বড় ধরনের করোনা হাবে পরিনত হবে।

গত এক সপ্তাহে এই অঞ্চলে করোনা রোগী বৃদ্ধির তালিকা:

country-sa-breef

ভারত চীন অচলাবস্থা। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যস্থতার প্রস্তাবকে নয়া দিল্লি বা বেইজিং কেউই গুরুত্বের সঙ্গে নেয়নি। অন্যদিকে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও প্রকাশ্যে চীনের সমালোচনা করেন। শনিবার বৈঠকে দুই দেশের সামরিক নেতারা শান্তিপূর্ণ উপায়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের উপর জোর দিয়েছেন।

করোনায় আক্রান্ত তালেবান নেতা: করোনাভাইরাসে শীর্ষ তালেবান নেতা মোল্লা হিবাতুল্লাহ আখুনজাদা গুরুতর অসুস্থ বলে রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে এ কথা স্বীকার করেনি তালেবানরা। যদিও পাকিস্তানে তালেবান যোদ্ধাদের বিশ্বাস যে আখুনজাদা এরই মধ্যে মারা গেছেন।

করোনায় প্রথম রোহিঙ্গা শরণার্থীর মৃত্যু। বাংলাদেশের কক্সবাজারে বিশ্বের সবচেয়ে বড় শরণার্থী শিবির হয়ে ওঠা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সোমবার ৭১ বছরের এক বৃদ্ধা কোভিড-১৯ উপসর্গ নিয়ে মারা যান৷ পরে পরীক্ষায় জানা যায় তিনি করোনা পজেটিভ ছিলেন৷ সরকারি হিসাব অনুযায়ী রোহিঙ্গা শিবিরে এ পর্যন্ত অন্তত ২৯ জনের করোনা ভাইরাস সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে৷ শিবিরে মৃত্যু সংখ্যা আরো বাড়বে।

ssssssssssssssjaaaaaaaaa

অদ্ভুত ও সমাপ্তি

মেনিয়াপোলিসে জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যার ঘটনায় গত সপ্তাহে বলিউড (ও হলিউডের) জনপ্রিয় অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া তার ইন্সটাগ্রামে নিজের মতামত জনিয়ে পোস্ট দেয়ার পরপরই তার বিরুদ্ধে তীব্র সমালোচনায় সরব হয়ে ওঠে সামাজিক গণমাধ্যম। একদিকে ত্বক ফর্সা করার ক্রিমের প্রচার, অপরদিকে বর্ণবাদের বিরুদ্ধে পোস্ট। এটা মেনে নিতে পারছেন না তার ভক্তরা। তাছাড়া ভারতে সংখ্যালঘু ও ভিন্নমতাবলম্বীদের ওপর নিপীড়ন চললেও সে ব্যাপারে চুপ থাকার কারণেও প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার সমালোচনা করছেন তারা।

সম্ভবত যুক্তরাষ্ট্রের শহরে শহরে বিক্ষোভের পর ভারত ও দক্ষিণ এশিয়াবাসী নিজেদের সমাজে বিরজমান সমস্যাগুলো সম্পর্কে ভাবতে উদ্বুদ্ধ হবে।

আজ এ পর্যন্তই।